Back

Home

A+ A A-

返回

যুক্তরাষ্ট্রের সিনচিয়াং ইস্যুতে হস্তক্ষেপের কোনও অধিকার নেই: সিআরআই সম্পাদকীয়

2020-06-18 20:02:30

জুন ১৮: যুক্তরাষ্ট্র তথাকথিত '২০২০ সালের উইগুর মানবাধিকার নীতিকে' আইন হিসেবে অনুমোদন দিয়েছে, তা চীন সরকারের সিনচিয়াং সম্পর্কিত নীতিতে আক্রমণ করেছে, যুক্তরাষ্ট্রের এ আচরণ আন্তর্জাতিক আইন ও আন্তর্জাতিক সম্পর্কের নীতি লঙ্ঘন করেছে। এটি চীনের অভ্যন্তরীণ ব্যাপারেও নগ্ন হস্তক্ষেপ। চীন এর তীব্র বিরোধিতা করে এবং এর তীব্র নিন্দা জানায়।

সিনচিয়াং উইগুর স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চল সম্পর্কিত সমস্যা মানবাধিকার, জাতি বা ধর্মীয় সমস্যা নয়, বরং তা সন্ত্রাসদমন ও বিচ্ছিন্নতাবাদের সমস্যা। সিনচিয়াংয়ে আগে চরমপন্থা এবং সহিংসতা ও বিচ্ছিন্নতাবাদী তত্পরতার শিকার হয়েছিল, জনগণের জীবন ও স্বার্থের নিরাপত্তা গুরুতর হুমকির মুখে পড়েছিল। সিনচিয়াংয়ে নেওয়া ধারাবাহিক ব্যবস্থা শুধু চীনের আইনের সঙ্গেই সঙ্গতিপূর্ণ নয়, বরং তা আন্তর্জাতিক সমাজের সন্ত্রাসদমন ও চরমপন্থা নির্মূলের আহ্বান বাস্তবায়নে চীনের নেওয়া পদক্ষেপ।

সন্ত্রাসবাদ ও চরমপন্থা হলো মানবজাতির অভিন্ন শত্রু।  বিভিন্ন দেশের সন্ত্রাসদমন ও চরমপন্থা নির্মূলের চেষ্টাকে ভিন্ন মানদণ্ড দিয়ে যাচাই করা ঠিক না। যুক্তরাষ্ট্রের উপরোক্ত আইন বাস্তবতা উপেক্ষা করেছে, সাদাকে কালো হিসেবে চালিয়ে দিয়েছে, সন্ত্রাসদমন ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্র 'দ্বৈত মানদণ্ড' ব্যবহার করেছে; এটি চীনের সার্বভৌমত্ব ও নিরাপত্তা ক্ষতিগ্রস্ত করা, চীনের জাতীয় সম্পর্ককে উস্কানি দেওয়া, সিনচিয়াংয়ের সমৃদ্ধি ও স্থিতিশীলতা নষ্ট করা এবং চীনের উন্নয়ন রোধের মার্কিন চেষ্টার প্রতিফলন।

সিনচিয়াংয়ে বিগত তিন বছরে কোনও সহিংস ঘটনা ঘটে নি। ২০১৯ সালে সিনচিয়াং-এর জিডিপির প্রবৃদ্ধি ছিল ৬.২ শতাংশ। যা চীনের গড়পড়তা মানের চেয়ে বেশি। সিনচিয়াং ইস্যু পুরোপুরি চীনের অভ্যন্তরীণ ব্যাপার। এতে যুক্তরাষ্ট্রের হস্তক্ষেপের কোনও অধিকার নেই।

(শুয়েই/তৌহিদ/লিলি)